রাম ছাগল বা যমুনাপাড়ি ছাগল পরিচিতি

রাম ছাগল বা যমুনাপাড়ি ছাগল মুলত বিদেশি জাতের ছাগল। যমুনাপাড়ি ছাগল কেই আমরা রাম ছাগল বলে ডেকে থাকি। যমুনাপাড়ি ছাগল ভারতের উত্তর প্রদেশের যমুনা, গঙ্গা ও চম্বল নদীর মধ্যবর্তী এটোয়া জেলা এবং আগ্রা ও মথুরা জেলায় প্রচুর দেখতে পাওয়া যায়। এছাড়াও বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী এলাকাতেও রাম ছাগল পাওয়া যায়। ছাগলের এ জাতটি মাংস ও দুধ উভয়ের জন্য পালন করা হয়।

সাধারনত বাংলাদেশে প্রজনন কাজে অন্যান্য দেশী জাতের সাথে এদের মিলন করানো হয়।

রাম ছাগল
যমুনাপাড়ি ছাগল

রাম ছাগল বা যমুনাপাড়ি ছাগলের বৈশিষ্ট

  • রাম ছাগল বা যমুনাপাড়ি ছাগলের শরীরের রং সাদা, কালো , হলুদ, বাদামী এবং বিভিন্ন রঙয়ের সংমিশ্রণে হয়ে থাকে।
  • রাম ছাগলের শরীরের গঠন সাধারনত লম্বাটে হয়। এদের পা খুব লম্বা এবং পিছনের পায়ের পেছন দিকে লম্বা লোম থাকে যা রাম ছাগলের অন্যতম বৈশিষ্ট।
  • এদের কান লম্বা প্রকৃতির ও ঝুলন্ত হয়। সাধারনত ৭-১০ ইঞ্চির অধিক ঝুলন্ত কান এদের প্রধান বৈশিষ্ট।
  • এ জাতের ছাগীর ওলান বেশ বড়, সুগঠিত ও ঝুলন্ত। ওলানের বাটগুলো মোটা ও লম্বা। মাথার শিং চ্যাপ্টা ও লম্বা হয়ে থাকে।
  • এদের শরীরের উচ্চতা ৩২-৪০ ইঞ্চি বা এর অধিক হতে পারে।
  • একটি পূর্ণবয়স্ক যমুনাপাড়ী পাঁঠার ওজন ৬০-৯০ কেজি এবং ছাগীর ওজন ৪০-৬০ কেজি পর্যন্ত হতে থাকে।
  • এই প্রজাতির প্রাপ্তবয়স্ক ছাগলের গড় ওজন ৭০-৯০ কেজি এবং ছাগীর ওজন ৫০-৬০ কেজি পর্যন্ত হয়।
  • এরা অত্যান্ত কষ্টসহিষ্ণু ও চঞ্চল প্রকৃতির হয়ে থাকে।
  • এরা সাধারণত দেরিতে প্রাপ্ত বয়োস্ক হয়ে থাকে।
  • যমুনা পাড়ি জাতের ছাগী বছরে একবার বাচ্চা দেয় এবং প্রতিবার ১-২ টি বাচ্চা প্রসব করে।
  • যমুনাপাড়ি জাতের ছাগলের দুধ প্রদান ক্ষমতা দেশি জাতের ছাগলের তুলনায় বেশি হয়ে থাকে। এরা প্রতিদিন প্রায় ১.৫-২ কেজির অধিক দুধ প্রদাণ করে। এ জাতের ছাগলের দুধে প্রায় ৪ – ৫ ভাগ ফ্যাট থাকে।
  • এ জাতের মাংশ ব্লাকবেঙ্গল জাতের ছাগলের মতো সুস্বাদু নয় এবং চামড়াও উন্নত মানের নয়। তবু দুধ ও মাংশ উৎপাদনের উদ্দেশ্যে এদেশে যমুনাপাড়ি জাতের ছাগল পালন করা হয়।
  • এর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ব্লাকবেঙ্গল ছাগলের চেয়ে কম হয়ে থাকে।

রাম ছাগলের দাম

জামুনাপারি বা রামছাগল জাতের ছাগলের দুধ এবং মাংস দুটিই ভাল দামে বিক্রি হয়। উন্নত জাতের ছাগল হওয়ায় ওজন বেশি হয় এবং বিক্রি করার সময় ভাল দাম পাওয়া যায়।

এ জাতের ছাগলের বাচ্চার বাজারে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে এবং ভালো দামেই বিক্রয় হয়। একজন ছাগল পালন খামারি কম খরচে এই জাতের ছাগল পালন করে খামারের উপার্জন সহজে বাড়াতে পারবেন। ছাগল গাছের পাতা খায়, তাই এই প্রাণীকে দানাশস্যও কম দিতে হয়।

আকারে বড় হওয়ায় বেশী পরিমাণ মাংস পাওয়া যায় এই প্রজাতির ছাগল থেকে।

রাম ছাগলের ছবি

নিচে রাম ছাগল বা যমুনাপড়ি জাতের ছাগলের কিছু ছবি দেওয়া হলো।

রাম ছাগল
রামছাগলের ছবি ১
রাম ছাগলের ছবি
রাম বা যমুনাপাড়ি ছাগলের ছবি ২
লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!