পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ সমূহ

পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ সমূহ। পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে মুরগি পালন প্রশিক্ষণ নিয়ে ব্রয়লার, লেয়ার ও সোনালী মুরগির ফার্ম করে আজ অনেক বেকার যুবক একটি স্বাধীন কর্ম সংস্থান খুজে পেয়েছেন। পোল্ট্রি ফার্ম শুরু করার আগে সঠিক প্রশিক্ষণের একান্ত প্রয়োজন। হাঁস মুরগি পালন করা আপাত দৃষ্টিতে সহজ মনে হলেও এর ফার্ম দিয়ে লাভবান হওয়া কিন্তু কঠিন। মুরগির রোগ ও চিকিৎসা, খাদ্য ব্যবস্থাপনা সকল বিষয়ে পূর্ণ ধারণা না থাকলে পোল্ট্রি ফার্ম থেকে লাভ আসা করা ভুল।

Read in English

পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র সমূহ

বাংলাদেশে সরকারী ও বেসরকারী ভাবে পোল্ট্রি ফার্ম বিষয়ক প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। আমরা চাইলে এসকল প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে খামার শুরু করতে পারি। তবে সকল প্রশিক্ষন নির্ভর করে শিক্ষাথ্রির মনেযোগ, আগ্রহ ও চেষ্টার উপর। এখানে একটি কথা বলে রাখা দরকার সেটা হলো ইউটিউবের ভিডিও দেখে মনে করবেন না যে আপনি সব শিখে ফেলেছেন। কেননা, ইউটিউবে বিভিন্ন পেশার বিভিন্ন ইউটিউবার তাদের ফলোয়ার বাড়ানো ও ইনকাম করার জন্য ভিডিও বানায়। এবং সেখানে নানান ভুল তথ্য যেমন থাকে তেমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সেখানে দেওয়া থাকে না।

পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

যুব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ/ট্রেনিং

বাংলাদেশ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর প্রায় সারা বছরই ব্রয়লার ও লেয়ার মুরগি ও হাঁস পালন বিষয়ে বিভিন্ন মেয়াদে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। অনেকে এদের প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকায় ইচ্ছা থাকা সত্তেও প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ পান না। আপনি যে বয়োসী হোন না কেন আপনি যুব উন্ননের যেকোন একটি প্রশিক্ষণ নিতে পারবেন।

যুব উন্নয়নের পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ / ট্রেনিং মুলত দুইটি ক্যাটাগোরিতে হয়। একটি প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষন ও অপরটি অপ্রাতিষ্ঠানিক বা ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণ।

বাংলাদেশ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রতিটি জেলা ও উপজেলাতে অফিস রয়েছে। আপনাকে সেসকল অফিসে যেয়ে দায়ীত্বরত কর্মকর্তার সাথে কথা বলতে হবে। তারা আপনাকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা হরবে।

যুব উন্নয়ন প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ বা ট্রেনিং

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কতৃক পরিচালিত যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও উপপরিচালকের কার্যালয়ের মাধ্যমে পোল্ট্রি বিষয়ে আবাসিক(থাকা-খাওয়া ফ্রি) ও অনাবাসিক প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ কোর্স পরিচানা করা হয়।

প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে ঋণের সুবিধা

প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে ঋণের সুবিধা ১ম দফায় অনধিক ৫০,০০০ টাকা, ২য় দফায় অনধিক ৬৫,০০০ টাকা ও ৩য় দফায় সর্বোচ্চ ৭৫,০০০ টাকা।

প্রশিক্ষণের বিষয়-

  • গবাদিপশু, হাঁস মুরগী পালন, প্রাথমিক চিকিৎসা, মৎস্য চাষ ও কৃষিবিষয়ক প্রশিক্ষণ।
  • ডেইরী ফার্ম এন্ড পোল্ট্রি ফার্ম ম্যানেজমেন্ট সুপারভাইজার প্রশিক্ষণ।

যুব উন্নয়ন অপ্রাতিষ্ঠানিক / ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণ বা ট্রেনিং

অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ কোর্সসমূহের আওতায় স্থানীয় চাহিদার ভিত্তিতে হাঁস-মুরগি তথা পোল্ট্রি সহ বিভিন্ন ট্রেডে বেকার যুবদের ৭দিন থেকে ২১দিন মেয়াদী প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। সংস্লিষ্ট উপজেলার যে কোন এলাকায় কারও একক উদ্যোগে অথবা কোন স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠনের উদ্যোগে অথবা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উদ্যোগে বেকার যুব ও যুব মহিলাদেরকে সংগঠিত করে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞ প্রশিক্ষক দ্বারা এই ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট এলাকার স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, ক্লাব ঘর, ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়, সুবিধাজনক যে কোন গৃহ অনুমতি সাপেক্ষে প্রশিক্ষণের ভেন্যু হিসেবে ব্যবহৃত হয়। প্রশিক্ষণের শেষ দিন প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীকে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে ঋণের সুবিধা

ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে ঋণের সুবিধা পাওয়া যায় ১ম দফায় অনধিক ৩০,০০০ টাকা, ২য় দফায় অনধিক ৩৫,০০০ টাকা ও ৩য় দফায় সর্বোচ্চ ৪০,০০০ টাকা।

প্রশিক্ষণের বিষয়-

  • পারিবারিক হাঁস মুরগী পালন প্রশিক্ষণ।
  • ব্রয়লার ও ককরেল পালন প্রশিক্ষণ।

যুব ঋণ পাওয়ার নিয়োম

  • অধিদপ্তর কতৃক প্রশিক্ষিত যুব সনদ (প্রশিক্ষণের মুল সনদপত্র জমা দিতে হবে)।
  • প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বিষয়ে পরীক্ষামুলক বাস্তব প্রকল্প থাকতে হবে।
  • একজন তৃতীয় পক্ষ টাকার জামিনদার থাকবেন, যিনি ১৫০ টাকার নন-জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে ঋণের নিশ্চয়তা দেবেন।
  • যে পরিমাণ টাকা ঋণ প্রত্যাশা করা হবে জামিনদার কতৃক ন্যুনতম তার দ্বিগুণ অংকের টাকার স্থাবর সম্পত্তির মুল দলিল অথবা দলিলের সার্টিফাইড কপি, হাল নাগাদ পর্চা ও হাল নাগাদ দাখিলা জমা দিতে হবে।
দেশী মুরগি পালন প্রশিক্ষণ
দেশী মুরগি পালন প্রশিক্ষণ ভোলা

কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামার প্রশিক্ষণ

কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামার সাভার, ঢাকা। এটি বাংলাদেশ সরবারের এমন একটি প্রতিষ্ঠান যেখানে আধুনিক ডেইরী ফার্ম সহ খামারীদের প্রশিক্ষণের উন্নত ব্যবস্থা রয়েছে। স্বল্প মেয়াদি পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ নিয়ে খুব সহজেই আপনি আপনার পোল্ট্রি খামার ব্যবসা সুরু করতে পারেন। এখানে প্রশিক্ষণ নেওয়ার জন্য আপনাকে খুব বেশি তদারকি করার প্রয়োজন হেবে না। কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামার ওয়েবসাইটে যেয়ে প্রশিক্ষণের রেজিস্ট্রেশন ফরমটি পুরন করলে আপনাকে তারা সুবিধামত সময়ে ডেকে নেবে।

প্রশিক্ষণের বিষয়

পোল্ট্রি খামারিদের জন্য এখানে মোট তিনটি বিষয় রয়েছে-

  1. পোল্ট্রি ফার্ম লেয়ার
  2. পোল্ট্রি ফার্ম ব্রয়লার
  3. পোল্ট্রি ফার্ম লেয়ার+ব্রয়লার

রেজিস্ট্রেশন লিংক- কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামার প্রশিক্ষণ অনলাইন রেজিস্টেশন

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের মাধ্যমেও একজন হাঁস, মুরগি, কবুতর, কোয়েল, টার্কি, তিতির ইত্যাদির খামারিরা খুব সহজে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। প্রশিক্ষণের জন্য ১০-১২ জন খামারি একত্রিত হয়ে উপজেলা প্রণিসম্পদ অফিসারের সাধে দেখা করলে তিনি খামারিদের প্রশিক্ষণের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এধরণের প্রশিক্ষণ সল্প মেয়াদি হলেও এগুলো খুবই কার্যকারী কোন অর্থ খরচ হয় না বরং কখনো কখনো প্রশিক্ষণার্থীকে সম্মানী ভাতা প্রদান করা হয়।

প্রশিক্ষণের বিষয়

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস থেকে যে সকল বিষয়ে স্বল্প মেয়াদি পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে-

  1. লেয়ার মুরগি পালন প্রশিক্ষণ
  2. ব্রয়লার মুরগি পালন প্রশিক্ষণ
  3. দেশী মুরগি পালন প্রশিক্ষণ
  4. সোনালী বা ককরের মুরগি পালন প্রশিক্ষণ
  5. হাঁস পালন প্রশিক্ষণ
  6. কবুতর পালন প্রশিক্ষণ
  7. কোয়েল পালন প্রশিক্ষণ
  8. তিতির পালন প্রশিক্ষণ
  9. টার্কি মুরগি পালন বিষয়ক প্রশিক্ষণ

পোল্ট্রি ফার্ম প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলো থেকে সহজে একটি প্রশিক্ষণ নিয়ে খামার সুরু করা উচিৎ।

আরো পড়ুন- ৭ টি লেয়ার মুরগি পালন বই pdf

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!