কবুতরের ঘর তৈরির নিয়ম ও পরিমাপ

কবুতরের ঘর তৈরির নিয়ম। কবুতরের আদর্শ বাসস্থান বা ঘর তৈরির জন্য কতগুলো মূলনীতি অনুসরণ করা দরকার। তা না হলে কবুতরের উৎপাদন কমে যাবে। কবুতরের খামার এখন লাভজনক ব্যবসা। কবুতোরের রোগের প্রাদুর্ভাব কমাতে হলেও নিম্ন লিখিত নীতিমালা অনুসরণ করা অত্যান্ত আবশ্যক।

কবুতরের ঘর বানানোর পদ্ধতি

দেশি কবুতরের ঘর তৈরি
  1. কবুতরের থাকার ঘরটি উঁচু করে এমন ভাবে তৈরি করতে হবে যাতে ক্ষতিকর প্রাণি ও পাখিদের নাগালের বােইরে থাকে।
  2. ঘরে প্রচুর আলো ও বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা রাখতে হবে। ঘর তৈরির সময় বৃষ্টির পানি যাতে ঘরে প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।
  3. হালকা কাঠ, পাতলা টিন, লোহার শিক, বাঁশ বা প্যাকিং কাঠ দিয়ে কবুতরের ঘর তৈরি করা যেতে পারে।
  4. কবুতরের ঘর পালনকারীর আবাসস্থল থেকে মাত্র ৬০-৯০ মিটার দুরে হওয়া উচিত। যেন তিনি সবসময় কবুতরের যত্ন নিতে পারে।
  5. প্রতি জোড়া কবুতরের জন্য লম্বা ৩০ সেন্টিমিটার চওড়া ৩০ সেন্টিমিটার এবং উচ্চতা ৩০ সেন্টিমিটার মাপের খোপ বানাতে হবে। কবুতরের ঘর পাশাপাশি বা কয়েক তলা বিশিষ্ট করা যেতে পারে। প্রতি তলায় ১২.৭০ সেন্টিমিটার বারান্দা বা ল্যান্ডিং স্পেস এবং প্রতিটি খোপের জন্য ১০.১৬ * ১০,১৬ সেন্টিমিটার মাপের দরজা থাকতে হবে। ঘর মাটি থেকে ২-২.৫ মিটার উঁচুতে হওয়া উচিত। একটি কবুতরের খামারে ৩২ জোড়া কবুতর হলো আদর্শ সংখ্যা।
  6. প্রতি মাসে ২-৩ বার ঘরের বিষ্ঠা পরিষ্কার করতে হবে এবং খোপ যাতে পরিষ্কার ও শুষ্ক থাকে সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে।
  7. দানাদার খাদ্যের পাত্র, পানির পাত্র, খনিজ মিশ্রণ, খাবার পাত্র ইত্যাদি কবুতরের ঘরের কাছেই রাখতে হবে। এছাড়া গোসলের জন্য পানিন ও ধুলি এবং বাসা তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় কড়কুটোর ব্যবস্থা রাখতে হবে।
কবুতরের ঘর বিদেশি

কবুতরের ঘরের সাইজ

প্রতি জোড়া কবুতরের জন্য লম্বা ৩০ সেন্টিমিটার চওড়া ৩০ সেন্টিমিটার এবং উচ্চতা ৩০ সেন্টিমিটার মাপের খোপ বানাতে হবে। ঘর পাশাপাশি বা কয়েক তলা বিশিষ্ট করা যেতে পারে। প্রতি তলায় ১২.৭০ সেন্টিমিটার বারান্দা বা ল্যান্ডিং স্পেস এবং প্রতিটি খোপের জন্য ১০.১৬ * ১০,১৬ সেন্টিমিটার মাপের দরজা থাকতে হবে। ঘর মাটি থেকে ২-২.৫ মিটার উঁচুতে হওয়া উচিত।

কবুতরের ঘরের ডিজাইন

কবুতরের ঘর বিভিন্ন ডিজাইনের হতে পারে। তবে উপরের ঘর তৈরির নীতিমালা ঘর তৈরির সময় খেয়াল রাখতে হবে। নিচে কিছু কবিতরের ঘরের ডিজাইনের ছবি দেওয়া হলো-

কবুতরের ঘর দেশি

বাঁশ দিয়ে কবুতরের ঘর তৈরি

বাঁশ দিয়েও দেশি বা বিদেশি জাতের কবুতরের ঘর তৈরি করা যেতে পারে। তবে ঘর বাঁশ দিয়ে তৈরি করার সময় কবুতর পালনের সকল সুযোগ সুবিধা যাতে বজায় থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হব। খেয়াল রাখতে হবে যেন ঘর আরামদায়ক ও নিরাপদ হয়।

কবুতরের বাসা তৈরি

কেবুতরের বাসা তৈরির জন্য ঘরের আশেপাশে বাসা তৈরির উপযোগি খড়কুটো জোগার করে রাখতে হবে। বিদেশি জাতের কবুতর খরকুটো সংগ্রহ করতে পারে না তাই তাদের বাসা নিজেকেই তৈরি করে দিতে হয়। বিদেশি কবুতরের বাসা তৈরির জন্য মাটির পাতিল ভেঙ্গে তৈরি করতে হয়। এতে কবুতরের বাসা বড় হয় এতে ডিম নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।

কবুতর সৌন্দর্যের প্রতিক। আপনার একটি বাড়ি থাকলে আপনি অবশ্যই চাইবেন সেখানে কিছু পাখি বা কবুতর পুষতে। কেননা এটি আপনার বাড়ির সৌন্দর্য যেমনি বাড়িয়ে তুলবে তেমনি আপনে এনেদেবে একটু বাড়তি আনন্দ। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন- কবুতরের দামের তালিকা ২০২১

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!